চান্দিনা

চান্দিনার এম এ লতিফের স্বঅর্থায়নে লাগানো কাঠ বৃক্ষের বিক্রিত অর্থ মাদ্রাসায় হস্থান্তর

চান্দিনার এম এ লতিফের স্বঅর্থায়নে লাগানো কাঠ বৃক্ষের বিক্রিত অর্থ মাদ্রাসায় হস্থান্তর

।।নিজস্ব প্রতিনিধি।।

কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের কামারখোলা গ্রামের মরহুম আলহাজ্ব এম এ লতিফ সাহেবের স্বঅর্থায়নে লাগানো ও পরিচর্যাকৃত কাঠ বৃক্ষের বিক্রিত অর্থ পানিপাড়া সিনিয়ার মাদ্রাসায় হস্থান্তর করা হয়।

মরহুম এম এ লতিফ পানিপাড়া সিনিয়র মাদ্রাসার একজন দাতা সদস্য ছিলেন।কামারখোলা গ্রামের মৌজায় অবস্থিত এম এ লতিফ মৎস্য প্রকল্প সংলগ্ন ১০ শতাংশ জমি পানিপাড়া সিনিয়ার মাদ্রাসায় দান করেন তাঁর চাচাজান মরহুম মেম্বার আঃ রহমান মাষ্টার।

এম এ লতিফ সাহেবের জীবদ্দশায় উক্ত জমিতে মাদ্রাসা কমিটির অনুমোদনক্রমে ১৫ টি কাঠ বৃক্ষের চারা রোপণ করেন ২০০৭ সালে নিজস্ব অর্থায়নে। তিনি নিজের সন্তানের ন্যায় কাঠ বৃক্ষের চারা গুলোর পরিচর্যা করেন।

বার্ধ্যকজনিত কারণে তিনি চট্টগ্রামে বড় ছেলে আয়কর পরিদর্শক মোঃ এমরান বিন ইউসুফের বাস ভবনে সেবা শুশ্রুষায় নিয়োজিত থাকা সত্ত্বেও প্রায় বৃক্ষ গুলোর খোঁজ খবর রাখতেন।

তিনি বৃক্ষ গুলোর পর্যবেক্ষন করার জন্য স্থানীয় প্রতিনিধি হিসেবে তাঁর আস্থাভাজন কামারখোলা গ্রামের মোঃ শফিক মিয়াকে দায়িত্ব প্রদান করেন। মোঃ শফিক মিয়া দায়িত্বশীল ভাবে কাজ টি পালন করেন।মরহুম এম এ লতিফ সাহেবের মৃত্যুর পর মাদ্রাসা কমিটির সাথে কথা বলে মোঃ শফিক মিয়া উক্ত কাঠ বৃক্ষগুলো কর্তন করেন এবং কাঠ বৃক্ষের বিক্রিত অর্থ পানিপাড়া সিনিয়ার মাদ্রাসা কমিটির নিকট হস্থান্তর করেন।

পানিপাড়া সিনিয়র মাদ্রাসা কমিটির কামারখোলা গ্রামের সমন্বয়ক মোঃ শফিক মিয়া সংবাদ সংগ্রাহক কে জানান ” মরহুম আলহাজ্ব এম এ লতিফ সাহেব একজন ভালো মানুষ ছিলেন, তিনি শুধু কাঠ বৃক্ষ রোপন নয় পানিপাড়া সিনিয়র মাদ্রাসার শিক্ষার মান উন্নয়নে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছেন, তার বড় প্রমাণ উনার হাত ধরে উক্ত মাদ্রাসায় ওনার বাবা ও চাচার জমি দান।”

গ্রামীণ সমাজ ব্যবস্থায় একজন নিভৃতচারী হয়ে শিক্ষা বিস্তারে অগ্রনায়কের ভূমিকায় ছিলেন মরহুম আলহাজ্ব এম এ লতিফ।

Close
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker