তিতাস

বুড়িচংয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে কুপিয়ে চখম করার অভিযোগ

বুড়িচংয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধাকে কুপিয়ে চখম করার অভিযোগ

কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের মৃত: আফাজ উদ্দিনের ছেলে বয়বৃদ্ধ আব্দুর রহিম ভুঁইয়া (৬২) কে তুচ্ছ  ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালে একই গ্রামের আবুল কাশেম মিয়ার ছেলে মো: তাজুল ইসলাম (৩০) কুপিয়ে ও লাঠি পেটা করে গুরুতর জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে জখমী মো: আব্দুর রহিমের ছেলে মো: ইয়াছিন ভুঁইয়া ২০ সেপ্টেম্বর রাতে বুড়িচং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে মো: ইয়াছিন ভুঁইয়া জানান, গত ১৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার তার বৃদ্ধ পিতা আব্দুর রহিম ভুঁইয়া মফিজ উদ্দিন ভুঁইয়ার বাড়ি সংলগ্ন পশ্চিম-দক্ষিণ কোণে গোমতী নদীর চরে তালগাছের নীচে পড়ে থাকা একটি পাকা তাল কুড়িয়ে পাশ্বে রেখে মসজিদে ফজর নামাজ পড়তে যায়। নামাজ শেষে সকাল ৬টার সময় এসে তাল দেখতে না পেয়ে পাশ্ববর্তী বাড়ির তাজুল ইসলামের স্ত্রী মোসা: সাজেদা বেগম কে সামনে পেয়ে পাকা তালের বিষয়ে জানতে চাইলে এরই মাঝে মো: তাজুল ইসলাম দৌড়ে এসে পাকা তালের বিষয়ে তার পিতা আব্দুর রহিমের সাথে কথা কাটাকাটি করে। এক পর্যায়ে তাজুল ইসলাম ঘর থেকে একটি ধারালো দা নিয়ে হিংস্র মনোভাব নিয়ে আব্দুর রহিম ভুঁইয়ার ডান গালে কোপ মেরে কাটা-রক্তাক্ত জখম করে। পরে লাঠি নিয়ে তাজুল ইসলামের স্ত্রী সাজেদা বেগম ও তার মা ফিরোজা বেগম আব্দুর রহিমকে গতিরোধ করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে  এলোপাথারী লাঠি পেটা করে এবং ডান হাতের বাহু, বাম পায়ের হাটুর উপরিভাগে দায়ের উল্টো পিঠ দিয়ে স্বজোরে উপর্যপুরি আঘাত করলে পায়ের হাড় ভেঙ্গে যায় এবং মারাত্মক ভাবে জখম হয়। পুনরায় তাজুল ইসলাম ও তার মা, স্ত্রী মিলে আব্দুর রহিমকে টেনে হেচড়ে হত্যার উদ্দেশ্যে গোমতি নদীতে ফেলে দেয়ার চেষ্টা করলে তার পিতা আব্দুর রহিম সজোরে চিৎকার করলে স্থানীয়  লোকজন তাকে উদ্ধার করে খবর দেয়। তখন   ঘটনা¯স্থলে গিয়ে  বৃদ্ধ অাব্দুর রহিমকে  চিকিৎসার জন্য বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  ভর্তি করে। অভিযোগ কারি ইয়াছিন বলেন  বর্তমানে  বৃদ্ধ বাবা  হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আমার বৃদ্ধ বাবা একজন সহজ সরল প্রকৃতির সাধারণ কৃষক। বিবাদী মো: তাজুল ইসলাম মূলত এলাকার দুষ্ট ও হিংস্থ  প্রকৃতির লোক।

৩-৪ জনকে নামীয এবং অজ্ঞাত ২-৩ জনকে অাসামী করে বুড়িচং থানায় অভিযোগ করা হয়।

Close
Close